ভিনিসিয়াস রিয়ালকে কতটা ভালোবাসে তার প্রমান মিলল মাঠেই

স্প্যানিশ জায়ান্ট রিয়াল মাদ্রিদ ২০১৮ সালে ফ্লামেঙ্গো থেকে ব্রাজিলিয়ান তরুণ ভিনিসিয়াসকে কিনেছিল। প্রতিভাবান প্লেয়ার হিসেবে পুরো ব্রাজিলে তখন ভিনিসিয়াসের নাম ডাক ছড়িয়ে পরছিল।

রিয়াল মাদ্রিদ তাকে কিনেছিল ৪৫ মিলিয়ন ইউরো দিয়ে। তবে প্রথম তিনটি মৌসুম ভিনিসিয়াস রিয়াল মাদ্রিদে তেমন কোন প্রভাব ফেলতে পারেনি।

ভিনিসিয়াস জুনিয়রকে নিয়ে শুরু হয় সমালোচনা। তাকে বিক্রির গুঞ্জন উঠে। যদিও বিক্রির গুঞ্জনটা ছিল মিডিয়ার তৈরি। রিয়াল মাদ্রিদ সভাপতি পেরেজ বরাবরই ভিনিসিয়াসের পাশে ছিলেন এবং সবসময় জানিয়েছেন, ভিনিসিয়াস বিক্রির জন্য নয়।

ভিনিসিয়াসকে যদি পেরেজ বিক্রির তালিকায় তুলে দিতেন তাহলে এতদিনে এমবাপ্পে রিয়ালে থাকত। পিএসজি অনেক দিন ধরেই ভিনিসিয়াসকে কেনার চেষ্টা করছিল। তারা এমবাপ্পের সঙ্গে ভিনিসিয়াসের সোয়াপ ডিলের অফার করেছিল। পেরেজ তাতেও রাজি হয়নি।

পেরেজ কেন রাজি হয়নি সেটারই প্রমান মিলতেছে এই মৌসুমে। ম্যাচের পর ম্যাচ গোল-অ্যাসিস্ট বা দুর্দান্ত পারফর্ম করে যাচ্ছেন। সেই সঙ্গে রিয়ালকে কতটা ভালোবাসেন সেটাও দেখাচ্ছেন।

রিয়াল মাদ্রিদে বেতন পান সামান্যই। সবচেয়ে কম বেতন পাওয়া একজন প্লেয়ার তিনি। কিন্তু তারপরও বেতন বাড়ানোর জন্য কোন চাপ দিচ্ছে না। অন্যান্য ক্লাব থেকে বড় অংকের বেতনের অফারেও রিয়াল মাদ্রিদ ছাড়ার কথা বলছেন না। সবসময় বলে যাচ্ছে, টাকা কোন বিষয় না, সে রিয়ালেই খেলতে চায়।

আর গতরাতে তো মাঠের মধ্যেই দেখাল রিয়ালকে কতটা সম্মান করেন। ভ্যালেন্সিয়ার বিপক্ষে ম্যাচ চলাকালে বলের পেছনে ছুটছিলেন ভিনিসিয়াস। বল চলে যায় সাইডলাইনের বাইরে। আর দ্রুত গতিতে এগিয়ে আসা ভিনিসিয়াসের সামনে তখন রিয়াল মাদ্রিদের লোগো। ভিনিসিয়াস সেই লোগোতে পা না দিয়ে লাফ দিয়ে সরে আসেন।

Related posts