গ্যারেথ বেল বনাম নেইমার

২০১৩ সালে নেইমার জুনিয়রকে কেনার চেষ্টা করেছিল রিয়াল মাদ্রিদ। কিন্তু শেষ পর্যন্ত সফল হয়নি তারা। নেইমার চলে যায় বার্সালোনাতে। নেইমারকে না পেয়ে রিয়াল মাদ্রিদ মনোযোগী হয় গ্যারেথ বেলের প্রতি। টটেনহাম থেকে এই তারকাকে ১০০ মিলিয়ন ইউরোর বিনিময়ে কিনে আনে।

ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো এবং লিওনেল মেসির পর আরও একটি ব্যক্তিগত প্রতিদ্বন্দ্বীতা তখন তৈরি হয় নেইমার এবং গ্যারেথ বেলের মধ্যে। তাদের উভয়কেই পরবর্তি ব্যালন ডি অর প্রতিদ্বন্দ্বী ভাবা হচ্ছিল।

কিন্তু সময়ের ব্যবধানে এই দুই তারকার পথ দুই দিকে চলে যায়। কিন্তু কেউই আর সফলতার চূড়ান্ত পথে পা রাখতে পারেনি। নেইমার বার্সালোনা ছেড়ে পিএসজিতে যাওয়ার পরই ক্যারিয়ারের নিন্মগামীতা শুরু হয় এবং গ্যারেথ বেল যেন মাদ্রিদে থেকেও না থাকার মতই ছিলেন।

২০১৩/১৪ মৌসুমের পর এখনও পর্যন্ত নেইমার ক্লাবের হয়ে ২০৫টি গোল করেছেন। গ্যারেথ বেল গোল করেছেন ১২২টি।

২০১৩/১৪ মৌসুমে- নেইমার ১৫ গোল- বেল ২২ গোল
২০১৪/১৫ মৌসুমে- নেইমার ৩৯ গোল- বেল ১৭ গোল
২০১৫/১৬ মৌসুমে- নেইমার ৩১ গোল- বেল ১৯ গোল

২০১৬/১৭ মৌসুমে- নেইমার ২০ গোল- বেল ৯ গোল
২০১৭/১৮ মৌসুমে- নেইমার ২৮ গোল- বেল ২১ গোল
২০১৮/১৯ মৌসুমে- নেইমার ২৩ গোল- বেল ১৪ গোল

২০১৯/২০ মৌসুমে- নেইমার ১৯ গোল- বেল ৩ গোল
২০২০/২১ মৌসুমে- নেইমার ১৭ গোল- বেল ১৬ গোল
২০২১/২২ মৌসুমে- নেইমার ১৩ গোল- বেল ১ গোল

গোল স্কোরিংয়ে নেইমার যোজন যোজন এগিয়ে গ্যারেথ বেলের থেকে। শুধু মাত্র ২০১৩/১৪ মৌসুমেই গ্যারেথ বেল নেইমারের থেকে বেশি গোল করেছিলেন। বাকি মৌসুমগুলোতে নেইমারের ধারে কাছেও ছিলেন না তিনি। তারমধ্যে রিয়ালে তো শেষটা হয়েছে ব্রাত্য থেকেই।

২০১৩/১৪ মৌসুম থেকে এখনও পর্যন্ত ক্লাবের হয়ে নেইমার মোট ১৩৬টি অ্যাসিস্ট করেছেন যেখানে গ্যারেথ বেলের অ্যাসিস্ট সংখ্যা ৭০টি। এখানেও গ্যারেথ বেলের থেকে নেইমার অনেকটা এগিয়ে রয়েছে।

আন্তর্জাতিক অঙ্গনেও নেইমারের ধারে কাছেও নেই গ্যারেথ বেল। নেইমার মোট ১১৯টি ম্যাচ খেলে ৭৪টি গোল এবং ৫২টি অ্যাসিস্ট করেছে যেখানে গ্যারেথ বেল ১০৪টি ম্যাচ খেলে ৩৮টি গোল এবং ২২টি অ্যাসিস্ট করেছে।

ক্লাবের হয়ে নেইমার জুনিয়র মোট ১৯টি শিরোপা জিতেছেন। লিগ টাইটেল জিতেছেন ৬টি, কাপ প্রতিযোগিতা (ঘরোয়া কাপ) ১২টি, চ্যাম্পিয়নস লিগ জিতেছেন ১টি।

নেইমারের ১১টি শিরোপা এসেছে পিএসজিতে এসে। বার্সাতে আটটি শিরোপার মধ্যে দুটি লিগ শিরোপা এবং একটি চ্যাম্পিয়নস লিগ শিরোপা জিতেছিলেন।

বিপরীতে গ্যারেথ বেল ১৬টি শিরোপা জিতেছেন যার মধ্যে তিনটি লিগ টাইটেল, ৮টি কাপ প্রতিযোগিতা এবং ৫টি চ্যাম্পিয়নস লিগ রয়েছে। যদিও তৃতীয় লিগ টাইটেল, পঞ্চম চ্যাম্পিয়নস লিগ এবং সর্বশেষ স্প্যানিশ সুপার কাপে তার অবদান ছিল নাম মাত্র। তবে রিয়ালের লা ডেসিমা জয়ে সবচেয়ে বড় অবদান ছিল বেলের। এছাড়াও ২০১৮ সালে ফাইনালে ম্যাচ সেরা হয়েছিলেন তিনি।

জাতীয় দলের হয়ে নেইমার জুনিয়র একটি শিরোপা জিতেছেন। কনফেডারেশন কাপে ব্রাজিলের এবং টুর্নামেন্টের সেরা খেলোয়াড় হয়েই শিরোপা জিতেছিলেন তিনি। তবে জাতীয় দলের হয়ে কোন শিরোপা জেতা হয়নি বেলের।

Related posts