৫০ মিলিয়নও এখন স্বস্তা মনে হচ্ছে!

ব্রাজিলিয়ান সেন্টারব্যাক এডার মিলিটাওকে ৫০ মিলিয়ন ইউরো দিয়ে পোর্তো থেকে কিনেছিল এডার মিলিটাও। তরুণ একজন সেন্টারব্যাকের জন্য ৫০ মিলিয়ন ইউরো! সেটাও আবার এমন একজনের জন্য যার কিনা ইউরোপের অলিগলি এখনো ঠিকমত চেনা হয়নি।

মিলিটাও রিয়াল মাদ্রিদে আসার পর নিজের পারফর্মেন্স যেন নিচের দিকে নামতে থাকে। যে মিলিটাওকে রিয়াল মাদ্রিদ কিনেছিল সেই মিলিটাও যেন হারিয়ে যায় কোথায়।

ম্যাচের পর ম্যাচ বেঞ্চে বসে থাকতে হয় তাকে। এমনকি তাকে পেছনে ফেলে নাচোও রিয়ালের একাদশে চলে আসে।

তবে সময়টা খুব দ্রুতই পাল্টেছে। এখন এডার মিলিটাও এমন একজন হিসেবে নিজেকে প্রমান করেছেন যাকে এখন একাদশের বাইরে রাখতে হলে কোচকে অনেক সাহসই দেখাতে হবে।

রামোস এবং ভারানের একসঙ্গে দলের বাইরে থাকার কারণে বাধ্য হয়েই মিলিটাওকে একাদশে আনেন জিদান। আর সেই থেকেই দলের অন্যতম সেরা সদস্য হিসেবে নিজেকে প্রমান করে যাচ্ছেন তিনি।

লিভারপুল, বার্সালোনা, কিংবা চেলসির মত বড় ম্যাচগুলোতে রিয়ালের সেরা ডিফেন্ডার হিসেবে নিজেকে প্রমান করেছেন তিনিই। রামোসের অভাব বুঝতেই দিচ্ছেন না এই ব্রাজিলিয়ান সেন্টারব্যাক।

মৌসুমের শুরুতে যাকে দেখে মনে হয়েছিল যে ৫০ মিলিয়ন বোধহয় নষ্ট হল, সেই মিলিটাও এখন যেন প্রমান করছেন যে ৫০ মিলিয়ন খুবই কম হয়ে গেল।

Related posts

Leave a Comment