২০২২ বিশ্বকাপই নেইমারের শেষ বিশ্বকাপ!

লিওনেল মেসি তার ক্যারিয়ারে বিশ্বকাপ খেলেছেন ৪টি। ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো তার ক্যারিয়ারে বিশ্বকাপ খেলেছেন ৫টি। ২০২২ বিশ্বকাপে তাদের খেলা বিশ্বকাপের সংখ্যাটা হবে ৫। কিন্তু তাদের সমান তালে উচ্চারিত হওয়া নেইমার জুনিয়রের জন্য সংখ্যাটা থমকে যেতে পারে মাত্র তিনেই।

নেইমারের প্রথম বিশ্বকাপ ছিল ২০১৪ বিশ্বকাপ। ব্রাজিলের মাটিতে অনুষ্ঠিত সেই বিশ্বকাপে নিজের জীবনের শেষটাও খুব কাছ থেকে যেন দেখে ফেলেছিলেন তিনি। কলম্বিয়ার বিপক্ষে ম্যাচে মারাত্মক এক ফাউলের শিকার হন নেইমার। সেই ফাউলে তার মেরুদন্ডে চির ধরে এবং ডাক্তাররা বলেছিল, আরেকটু এদিক সেদিক হলে তার ফুটবল ক্যারিয়ারের ইতি ঘটে যেত।

সেই ইনজুরি থেকে উঠে আসার পর ফের মারাত্মক ইনজুরিতে পরেন পিএসজিতে আসার পর। ২০১৭ সালে পিএসজিতে আসার পর দুইবার পায়ের দুটি ইনজুরিতে তাকে প্রায় একটা মৌসুম পুরোটাই মাঠের বাইরে কাটাতে হয়।

এত এত মারত্মক ইনজুরির পরও সেখান থেকে উঠে এসেছেন নেইমার এবং খেলে যাচ্ছেন সর্বোচ্চ পর্যায়ের ফুটবল। কিন্তু এমনটা আর কতদিন? বয়স বাড়ছে, আঘাতের স্থানগুলোতে ধীরে ধীরে যন্ত্রনা বাড়বে। তখন কি আর ফুটবল খেলা সম্ভব হবে?

নেইমারের আশঙ্কা কিন্তু এটাই। তাইতো সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে নেইমার জানালেন, ২০২২ বিশ্বকাপই হয়তো তার শেষ বিশ্বকাপ হতে যাচ্ছে। কেননা শরীরের সঙ্গে লড়াই করে তো আর খেলা সম্ভব হবে না।

নেইমার বলেন, “আমার মনেহয় এটা আমার শেষ বিশ্বকাপ। আমি এটাকে আমার শেষ বিশ্বকাপ হিসেবেই দেখছি। কারণ আমি জানিনা এরপর ফুটবল নিয়ে লড়াই করার জন্য আমার মনের শক্তি থাকবে কিনা।

“সুতরাং বিশ্বকাপ জয়ের জন্য যা প্রয়োজন আমি তা করব। আমি আমার দেশকে বিশ্বকাপ এনে দেয়ার জন্য লড়াই করব যে স্বপ্ন আমি ছোট থেকে দেখছি। আমি আশাকরি আমি জিততে পারব।”

Related posts