যা করার নেইমারকেই করতে হবে

এমনিতেই পিএসজির খেলা নিয়ন্ত্রিত হয় নেইমারকে দিয়েই। নেইমার যেসব ম্যাচে খেলেন সেগুলোতে তাকে কেন্দ্র করেই খেলা সাঁজানো হয়। অ্যাটাকিং মিডে নেইমারকে নামিয়ে দুর্দান্ত এক কাজ করেছে টুখেল সেটা বলাই যায়।

নেইমার মাঝমাঠ নিয়ন্ত্রনের সঙ্গে সঙ্গে দারুণ সব পাস বাড়ান ফরোয়ার্ডদের দিকে। একই সঙ্গে নেইমার নিজেও গোল করেন। ফলে পিএসজির জন্য খেলায় প্রভাব বিস্তার করা আরেকটু সহজ হয়ে যায়।

কিন্তু এবার সমস্যায় পিএসজি। নেইমারের পাস থেকে সবচেয়ে বেশি গোল যিনি করেছেন, মাঠে নেইমারকে সবচেয়ে বেশি বুঝেন যিনি, সেই এমবাপ্পেই নেই। কোপা ডে ফ্রান্স কাপের ফাইনালে ইনজুরিতে পরে আটালান্টার বিপক্ষে ম্যাচে দর্শক হয়ে গিয়েছেন তিনি।

এমবাপ্পে না থাকলেও রাইট উইং যার সামলানোর কথা সেই ডি মারিয়াও নেই। তাই এখন অন্য যারা আছে তাদের দিয়েই কাজ চালাতে হবে পিএসজিকে। সেই সঙ্গে দায়িত্বটা যেন বেড়ে গেল নেইমারেরও।

গত দুই মৌসুমে দ্বিতীয় রাউন্ডের বাধা পাড় করতে না পারা দলটি এবার উঠেছে কোয়ার্টারে। দারুণ সুযোগও তাদের সামনে ফাইনাল পর্যন্ত যাওয়ার। অন্তত বায়ার্ন, জুভেন্টাস, রিয়াল বা ম্যানসিটি যারাই উঠুক, ফাইনালের আগে তাদের সঙ্গে দেখা হবে না পিএসজির।

কিন্তু সামনে যখন এমন সুযোগ তখন এমবাপ্পেকে হারিয়ে বিপদে পিএসজি। তাই এখন দায়িত্বটা আরো বেছে গেছে নেইমারের। কোয়ার্টার ফাইনালে কিছু করতে হলে তাকেই সামনে থেকে নেতৃত্ব দিতে হবে যেমনটা দিয়েছিলেন বুরুশিয়ার বিপক্ষে।

Related posts

Leave a Comment