২০০ মিলিয়ন ইউরোর প্লেয়ারকে ছাড়তে হচ্ছে ফ্রিতে

টাকা নয়, রিয়াল মাদ্রিদে খেলার ইচ্ছাটাই বেশি। স্বপ্নের ক্লাবে খেলার জন্য পিএসজির বড় অংকের বেতনের অফারও অবলীলায় প্রত্যাখ্যান করে রিয়াল মাদ্রিদে আসতে চাচ্ছেন ফ্রান্সের তারকা কিলিয়ান এমবাপ্পে।

পিএসজির সঙ্গে চলতি মৌসুমের শেষ পর্যন্ত চুক্তি রয়েছে এমবাপ্পের। এই চুক্তির মেয়াদ শেষ হওয়ার পর তাকে আর কোন ভাবেই বাধা দিতে পারবে না পিএসজি। সেই অধিকারটাই আর থাকবে না তাদের।

এই অধিকারের কারণেই গত সামারে এমবাপ্পেকে আটকে দিয়েছিল পিএসজি। গত সামারেই পিএসজিকে পরিষ্কার ভাবে এমবাপ্পে জানিয়ে দিয়েছিল যে, সে রিয়াল মাদ্রিদে যেতে চায়। তাই তাকে বিক্রি করে যেন কিছু টাকা কামিয়ে নেয় ক্লাবটি।

কিন্তু পিএসজি হয়তো ভেবেছিল অন্যকিছু। তারা হয়তো ভেবেছিল এমবাপ্পেকে রাজি করানো যাবে নতুন চুক্তিতে। তাই তারা রিয়ালের ২০০ মিলিয়ন ইউরোর প্রস্তাবও প্রত্যাখ্যান করে এবং এমবাপ্পেকে পিএসজিতেই রেখে দেয়।

কিন্তু ঘটনা ঘটেছে উল্টোটা। এরপর পিএসজি যতবারই এমবাপ্পের সঙ্গে নতুন চুক্তির বিষয়ে কথা বলেছে, ততবারই এমবাপ্পে না করে দিয়েছে। সর্বশেষ তারা বছরে ৩৬ মিলিয়ন ইউরো বেতনের অফারও করেছিল যা প্রত্যাখ্যান করেছে এমবাপ্পে।

এরমধ্যে আবার গনমাধ্যমে গুঞ্জন ছড়িয়েছে যে, এমবাপ্পে পিএসজির ৩৬ মিলিয়ন ইউরো বেতনে রাজি না হলেও রিয়াল মাদ্রিদে ২১ মিলিয়ন ইউরোতেই রাজি। রিয়ালে বছরে ২১ মিলিয়ন ইউরো হবে তার বেতন। সঙ্গে ফ্রিতে আসায় সাইনিং বোনাস হিসেবে পাবেন ৪০ মিলিয়ন ইউরো।

নেইমারও বার্সালোনা ছাড়ার দুই বছর পর বার্সাতে ফের আসতে চেয়েছিল। পিএসজি তাকে তখন আটকে দিয়েছিল এবং পরে বুঝিয়ে নতুন চুক্ততে রাজি করিয়েছিল। তারা হয়তো ভেবেছিল যে, এমবাপ্পেও নেইমারের মত রাজি হবে। কিন্তু ঘটনা ঘটে গেছে উল্টো। তাই এখন ২০০ মিলিয়ন ইউরোর জায়গায় ফ্রিতেই তাকে ছাড়তে হতে পারে ক্লাবটির।

Related posts