কালো আবরণে ঢাকা হিরের টুকরো

রোনালদিনহোকে রিয়াল মাদ্রিদ কিনতে পারত। কিন্তু কালো বলে কেনা হয়নি। সেই রোনালদিনহো ইতিহাস তৈরি করেছে বার্সালোনাতে। বার্সালোনার নতুন জাগরণ এই রোনালদিনহোর হাত ধরেই হয়েছিল।

গ্রাম বাংলায় একটা কথা বলে, “জাতের মেয়ে কালো ভালো।” মেয়ে যদি ভালো হয় তাহলে কালোতে কি আসে যায়।

আমাজন মহাবন হচ্ছে দুনিয়ার সবচেয়ে বড় বন। এই বনেও নিয়মিতই পাচারকারীরা হানা দেয় সোনা ও হিরের খনির সন্ধানে। এই মহাবনটির সবচেয়ে বেশি অবস্থিত ব্রাজিলে। বনের মতই ব্রাজিলেও হানা দেয় বাহিরের দেশের মানুষ।

তবে এরা পাচারকারী নয়। ইউরোপের বড় বড় ক্লাবগুলো। আর তারা হানা দিত ব্রাজিলিয়ান প্রতিভাগুলো তুলে আনার জন্য যারা খনির হিরের মতই।

মহাবনের মধ্যে যেমন হিরের খনি খুঁজে হিরেটা বেড় করা লাগে, ঠিক তেমনি ফুটবলারদের খনি ব্রাজিলে এমন হিরের টুকরো ফুটবলার খুঁজে বেড় করা লাগে যেটা করে থাকে ইউরোপিয়ান ক্লাবগুলো।

তেমনি এক হিরের টুকরো হচ্ছে ভিনিসিয়াস জুনিয়র। রোনালদিনহোকে না কিনে যে ভুল রিয়াল করেছিল ভিনিসিয়াসের ক্ষেত্রে আর সেই ভুল করেনি তারা। তখনকার সবচেয়ে দামী তরুণ তারকা হিসেবেই ভিনিসিয়াসকে দলে টানে রিয়াল মাদ্রিদ।

সেই ভিনিসিয়াস যিনি এখন রিয়াল মাদ্রিদের আক্রমন ভাগের নেতা হওয়ার জন্য প্রস্তুত। বর্তমান রিয়াল মাদ্রিদের আক্রমন ভাগের অন্যতম সেরা তারকাই এখন তিনি।

১৮ বছরে রিয়াল মাদ্রিদে পা রাখা একজন তরুণের পক্ষে সান্তিয়াগো বার্নাব্যুর চাপ সামলানো কঠিনই হওয়ার কথা। তবে যে ছেলে ১৭ বছর বয়সে মারাকানায় দাপিয়েছে তার কাছে এ আর এমন কি। বার্নাব্যুর সেই চাপও তাই দারুণ ভাবে সামলেছেন ভিনিসিয়াস। কিন্তু কোথাও যেন একটু কমতি ছিল। সেটা ফিনিশিং। ফিনিশিং না পারার কারণে শুনতে হয়েছিল সমালোচনা।

সান্তিয়াগো সোলারির অধিনে রিয়ালের মূল দলে জায়গা করে নেয়া ভিনিসিয়াস জিদানের সময়ে কিছুটা কঠিন সময় পাড় করে। তবে যে সূর্য আলো দেয় সেই সূর্যকে মেঘ কতক্ষন ঢেকে রাখতে পারে?

নিজের পারফর্মেন্স দিয়ে ফের আলোতে আসেন ভিনিসিয়াস। যে ভিনিসিয়াস ফিনিশিংয়ে সমস্যা ছিল সেই ভিনিসিয়াস রিয়ালের সর্বশেষ দুই জয়ের কারিগর। যে ভিনিসিয়াস কঠিন সময় পাড় করছিল সেই ভিনিসিয়াস এখন রিয়ালের দায়িত্ব নিতে শিখে গেছেন।

ভবিষ্যত চিন্তা করে দল গঠন করা রিয়াল মাদ্রিদ সভাপতি পেরেজে যে কালো অবরণে ঢাকা একটি হিরের টুকরো কিনে এনেছে সেটা নিয়ে এখন আর কারও সন্দেহ নেই।

Related posts

Leave a Comment