মেসি নেইমারকে নিয়ে উভয় সংকটে বার্সা

বার্সাকে আবার সঠিক পথে ফেরানোর জন্য এবং মেসিকে সাহায্য করার জন্য নেইমার জুনিয়রকে বার্সাতে আনার জন্য অনেকেই অনুরোধ করেছিলেন। অনেকেই নেইমারকে বার্সাতে দেখতে চেয়েছিলেন বার্সার হারানো জৌলশ ফেরানোর জন্য।

বার্সার সাবেক সভাপতি সান্দ্রো রোসেল বলেছিলেন, আমি যদি আবার বার্সার সভাপতি হতাম তাহলে নেইমারকেই কিনতাম।

বার্সার সাবেক খেলোয়াড় জাভিও বলেছিলেন বার্সার এখন নেইমারকে প্রয়োজন। দানি আলভেসও একই কথা বলেছেন। একই কথা বলেছেন রিভালদো।

তবে বার্সালোনা সভাপতি বার্তামেউ যেন ওসব কথা কানে তুলতে নারাজ। তিনি নেইমারকে বার্সালোনায় আনতে চান না এটাই নাকি তার মনের ইচ্ছা।

গত মৌসুমে বার্সালোনা নেইমারকে ফেরানোর জন্য চেষ্টা করেছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত আনতে পারেনি। ওই ব্যর্থতার পর মেসিও সন্দেহ প্রকাশ করে বলেছিলেন, আমি জানিনা বার্সা আন্তরিক ভাবে চেষ্টা করেছিল কিনা।

বার্তামেউ সবাইকে দেখাতে চেয়েছে সে নেইমারকে আনতে চায়। কিন্তু মনে মনে সে চেয়েছিল নেইমারকে ছাড়াই সফল হওয়ার জন্য। আর সেই জন্যই তিনি গ্রীজম্যানকে কিনেছিলেন ১২০ মিলিয়ন ইউরো দিয়ে মেসির না চাওয়া সত্তেও। বার্তামেউ ভেবেছিলেন গ্রীজম্যানকে নিয়ে সফল হলে মেসি আর নেইমারকে চাইবে না। কিন্তু হয়েছে উল্টোটা। গ্রীজম্যান তার ক্যারিয়ারে অন্যতম বাজে মৌসুম কাটানোর পর এখন মেসিও চুক্তি করতে অস্বীকার করেছে বার্সার সঙ্গে।

কিন্তু প্রথম দিকে বিপরীতি চিন্তা করে এখন উল্টো উভয় সংকটেই পড়ে গেছে বার্সা। কেননা মেসিও এখন চুক্তি করতে অস্বীকার করেছে বার্সার সঙ্গে। যদি চ্যাম্পিয়ন হওয়ার মত দল গঠন না করে তাহলে মেসি বার্সালোনা ছেড়ে চলে যাবে।

বার্সালোনা নেইমারকে কিনতে পারেনি টাকার জন্য। অথচ গ্রীজম্যানকে বার্সা কিনেছিল ১২০ মিলিয়ন ইউরো দিয়ে। যদি বার্সা গ্রীজম্যানকে না কিনত তাহলে এই মৌসুমে অনায়াসেই নেইমারকে নিয়ে আসতে পারত বার্সা। কিন্তু ওই যে বার্তামেউ চেয়েছিল নেইমারকে না এনেই সেরা দল বানানো- কিন্তু তার সেই চাওয়া হয়ে গেছে বুমেরাং।

এবার আর নেইমারকে তাই সহজেই পাচ্ছে না বার্সা। করোনা ভাইরাসের কারণে আর্থিক সংকটে পড়েছে সবক্লাবই। এখন এত বিশাল অংকের টাকা ব্যয় করাও সম্ভব না। তাই এবার আরও বেশি অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে নেইমারকে কেনার ক্ষেত্রে। কিছুদিন আগে বার্তামেউ নিজেই জানিয়েছিলন, করোনার কারণে মার্কেটের যে অবস্থা হয়েছে তাতে নেইমারকে আনা সম্ভব না।

বার্সা এখন কি করবে? সোয়াপ ডিল ব্যবহার করে নেইমারকে আনার চেষ্টা করবে? কিন্তু সেখানে যে আবার পিএসজির রাজি না হওয়ারই সম্ভাবনা বেশি? যদিও রাজি হয় তাহলেও কি সব বিষয়ে একমত হতে পারবে? সময় বলে দিবে সবকিছু।

Related posts

Leave a Comment