নেইমারের জাতীয় দলে প্রথম শিরোপা জয়ের নয় বছর পূর্ণ হল

নেইমারের নাম তখন সারা বিশ্বে ছড়িয়ে পরেছে। বার্সালোনা এবং রিয়াল মাদ্রিদ তাকে পাওয়ার জন্য তুমুল লড়াইয়ে নেমেছিল। কিন্তু নেইমার জুনিয়র বেছে নিয়েছিলেন বার্সালোনাকে। নেইমার বার্সালোনার সঙ্গে চুক্তি করলেও বার্সাতে আসার পূর্বেই ব্রাজিলকে ফিফা কনফেডারেশন কাপ জিতিয়েছিলেন। অনেকেই বলেছিল যে, যদি এই টুর্নামেন্টের পর চুক্তিটা হত তাহলে বার্সাকে আরও বেশি টাকা গুনতে হত। ২০১৩ কনফেডারেশন কাপে অপ্রতিরোধ্য ব্রাজিলকে দেখেছিল ফুটবল বিশ্ব। তৎকালীন ইউরোপের সেরা দল স্পেনকে গুড়িয়ে দিয়েছিল ব্রাজিলিয়ানরা। গ্রুপ পর্বে ব্রাজিলের প্রতিপক্ষ ছিল জাপান, ইতালি এবং মেক্সিকো। তিনটি ম্যাচেই জয় পায় ব্রাজিল। তারমধ্যে ইতালির বিপক্ষে জয় পায় ৪-২ গোলে। অন্যদিকে…

Read More

প্রিমিয়ার লিগে সবচেয়ে সফল ২০ ব্রাজিলিয়ানের তালিকা

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে অসংখ্য ব্রাজিলিয়ান তারকারা খেলেছেন। এখনও অনেকেই খেলছেন। অনেকেই তাদের ক্লাবের গুরুত্বপূর্ণ সদস্য হয়ে আছেন। কেউ কেই ইতিহাস তৈরি করেছেন। প্রিমিয়ার লিগে খেলা এমন অসংখ্য ব্রাজিলিয়ান তারকার মধ্যে সেরা ২০ জনের তালিকা করেছে ফুটবল বিষয়ক ওয়েবসাইট গোল ডটকম। দেখা যাক সেই তালিকায় আছে কারা.. ১. গিলবার্তো সিলভা (আর্সেনাল): প্রিমিয়ার লিগ একটি, এফএ কাপ ২টি, কমিউনিটি শিল্ড কাপ ২টি। ২. উইলিয়ান (চেলসি ও আর্সেনাল): প্রিমিয়ার লিগ দুটি, এফএ কাপ ১টি, ইএফএল কাপ ১টি, ইউরোপা লিগ ১টি। ৩. ফার্নান্দিনহো (প্রিমিয়ার লিগ ৫টি, এফএ কাপ ১টি, ইএফএল কাপ ৬টি, কমিউনিটি শিল্ড…

Read More

ব্রাজিলের ৫ম বিশ্বকাপ জয়ের ২০ বছর পূর্ণ হল আজ

ল্যাতিন আমেরিকার জায়ান্ট ব্রাজিল ফুটবল ইতিহাসে সর্বোচ্চ ৫টি বিশ্বকাপ জিতেছে। এই পাঁচটি বিশ্বকাপের সর্বশেষটি এসেছে ২০০২ সালে। সাবেক লিজেন্ড কাফুর হাত ধরে ব্রাজিল জিতেছিল এই বিশ্বকাপ। বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্বে তুরস্ক, কোস্টারিকা এবং চিনকে হারিয়ে দ্বিতীয় রাউন্ডে উঠেছিল ব্রাজিল। দ্বিতীয় রাউন্ডে ব্রাজিলিয়ানরা ২-০ গোলে পরাজিত করে বেলজিয়ামকে। কোয়ার্টার ফাইনালে ব্রাজিলের মুখোমুখি হয় ইংল্যান্ড। ২-১ গোলে ইংলিশদের পরাজিত করে সেমিফাইনালে উঠে রোনালদো নাজারিওরা। সেখানে ফের তুরস্কের বিপক্ষে মুখোমুখি হয় ব্রাজিল এবং জিতে ১-০ গোলে। ফাইনালে মুখোমুখি হয় ইউরোপের পাওয়ার হাউস খ্যাত জার্মানীর বিপক্ষে। সেই লড়াইয়ে জার্মানীকে ২-০ গোলে পরাজিত করে বিশ্বকাপ শিরোপা…

Read More

আর্জেন্টিনার দ্বিতীয় বিশ্বকাপ জয়ের ৩৬ বছর পূর্ণ হল

১৯৮৬ সালের ২৯ জুন, আর্জেন্টিনার ইতিহাসে অন্যতম সেরা একটি দিন। কেননা, এই দিনে আর্জেন্টিনা তাদের দ্বিতীয় ও শেষ বিশ্বকাপ জিতেছিল। ডিয়াগো ম্যারাডোনার হাত ধরে সেবার বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল আর্জেন্টিনা। বিশ্বকাপে আর্জেন্টিনা ছিল এ গ্রুপে। সেখানে শক্তিশালী ইতালি ছিল তাদের সঙ্গে। গ্রুপ পর্বে চ্যাম্পিয়ন হয়েই পরের রাউন্ডে উঠেছিল আর্জেন্টিনা। রাউন্ড অব ১৬তে আর্জেন্টিনা উরুগুয়েকে ১-০ গোলে পরাজিত করে কোয়ার্টার ফাইনালে উঠেছিল। কোয়ার্টার ফাইনালে ইংল্যান্ডকে ২-১ গোলে পরাজিত করেছিল আর্জেন্টিনা। আর্জেন্টিনার দুটি গোলই করেছিল ডিয়াগো ম্যারাডোনা। ইংল্যান্ডের গোলটি করেছিলেন লিনেকার। সেমিফাইনালে বেলজিয়ামের বিপক্ষে মুখোমুখি হয়েছিল আর্জেন্টিনা। ম্যাচে আর্জেন্টিনা জয় পায় ২-০ গোলে।…

Read More

রিয়াল মাদ্রিদের পর আর্সেনালও হতে যাচ্ছে মিনি ব্রাজিল

স্প্যানিশ জায়ান্ট রিয়াল মাদ্রিদ ইতিমধ্যে মিনি ব্রাজিল দল হিসেবেই পরিচিতি লাভ করেছে ভক্তদের মাঝে। এই দলটিতে অনেকগুলো ব্রাজিলিয়ান প্লেয়ার রয়েছে যারা দলের গুরুত্বপূর্ণ সদস্য। চলতি মৌসুমেই চুক্তি শেষ হওয়ায় মার্সেলো চলে গেছেন রিয়াল মাদ্রিদ ছেড়ে। তবে এখনও এই দলে আছেন ক্যাসমিরো, মিলিটাও, ভিনিসিয়াস জুনিয়র, রোদ্রিগো গোয়েস। কিছুদিন আগে আরেক ব্রাজিলিয়ান ভিনিসিয়াস তোবিয়াসকে কিনেছে। এছাড়া রেনিয়ের জেসুস আছেন রিয়ালে যিনি হয়তো লোনে যাবেন বেনফিকাতে। রিয়াল মাদ্রিদের মতই যেন এবার একাধিক ব্রাজিলিয়ান তারকা নিয়ে দল গঠন করার মিশনে নেমেছে আর্সেনাল। ইতিমধ্যে চারজন ব্রাজিলিয়ান তারকা তাদের দলের যুক্ত হয়েছে। আরও একজনের সম্ভাবনা আছে।…

Read More

১৯৭৮ বিশ্বকাপে আর্জেন্টিনার কলঙ্কিত ইতিহাস

ল্যাতিন আমেরিকার জায়ান্ট আর্জেন্টিনা তাদের ইতিহাসে দুটি বিশ্বকাপ জিতেছে। ১৯৭৮ সালে নিজেদের মাঠে তারা বিশ্বকাপ জিতেছিল এবং দ্বিতীয় বিশ্বকাপ জিতেছিল ১৯৮৬ সালে। ১৯৭৮ সালের বিশ্বকাপটি আর্জেন্টাইনদের কাছে ছিল খুব গর্বের বিষয়। তাদের ইতিহাসে প্রথম বিশ্বকাপ জয় বলে কথা। সেটাও আবার নিজেদের মাঠে, নিজেদের দর্শকদের সামনে। কিন্তু আর্জেন্টিনার এই বিশ্বকাপ জয়ের পেছনেও ছিল কলঙ্কিত এক ইতিহাস। যে ইতিহাস পরবর্তিতে প্রকাশ হওয়ার পর আর্জেন্টিনার ওই দলের কয়েকজন প্লেয়ারও পরবর্তিতে নিজেদের বিশ্বকাপ জয়ী দলের সদস্য বলে পরিচয় দিতে লজ্জা পেতেন। বিশ্বকাপ হয়েছিল আর্জেন্টিনার মাটিতে। তখন আর্জেন্টিনার সামরিক সরকার ছিল ক্ষমতায়। কোন নকআউট পর্ব…

Read More

কাতার বিশ্বকাপের সবচেয়ে দামী পাঁচ দল

আর মাত্র কয়েকটি মাস। এরপরই পর্দা উঠবে ফুটবলের সবচেয়ে বড় আসর বিশ্বকাপের। কাতারে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া এবারের বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হবে আগামী নভেম্বর মাসে। নভেম্বর মাসে অনুষ্ঠিত বিশ্বকাপে কোন ৩২টি দল অংশ নিবে সেটা নিশ্চিত হয়েছে। এই ৩২টি দলের মধ্যে সবচেয়ে দামী স্কোয়াড নিয়ে যাচ্ছে কোন পাঁচটি দল সেটাই জানা যাক। ০৫. জার্মানী: এবারের আসরে হট ফেবারিট জার্মানী। চারটি বিশ্বকাপ জয়ী এই দলটির মোট মূল্য ৮০৪ মিলিয়ন ইউরো। দলটির সবচেয়ে দামী তারকা হচ্ছেন কিমিখ যার মূল্য ৮০ মিলিয়ন ইউরো। ০৪. পর্তুগাল: ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর পর্তুগাল এবারের বিশ্বকাপে হট ফেবারিট না হলেও ডাক…

Read More

বিশ্বকাপ জেতার সব অস্ত্র ব্রাজিলের রয়েছে, প্রয়োজন শুধু সঠিক ব্যবহারের

বিশ্বকাপ জেতার জন্য ভালো প্লেয়ারের প্রয়োজন, দল হিসেবে তাদের ভালো খেলার প্রয়োজন। কিন্তু যদি ভালো প্লেয়ার না থাকে তাহলে দল হিসেবেও ভালো খেলার সম্ভাবনা অনেকটাই কম থাকে। যে দলে ভালো প্লেয়ার যত বেশি থাকবে সেই দলের বিশ্বকাপ জেতার সম্ভাবনা তত বেশি থাকবে। অবশ্যই এরমধ্যে ভাগ্যটাও জড়িত। কিন্তু তারপরও প্লেয়ার যদি ভালো না হয় তাহলে তো আশা করাও যাবে না। তবে শুধু একাদশের ১১ জন ভালো হলেই হবে এমনটা নয়, সঙ্গে বদলি খেলোয়াড়দেরও ভালো হতে হয়। এর সবচেয়ে সুন্দর উদাহরণ হতে পারে ২০১৪ বিশ্বকাপে জার্মানীর গোৎজে। বদলি হয়ে নেমে তিনিই গোলটি…

Read More

দানি আলভেসের শেষ ইচ্ছা পূরণ করেনি বার্সা

গত মৌসুমে বার্সালোনার দুঃসময়ে কোচ হয়ে আসেন সাবেক তারকা জাভি হার্নান্দেজ। এসেই হাত দেন দল মেরামতের কাজে। দূর্বল পজিশনগুলোতে সম্ভাব্য ভালো প্লেয়ার নিয়ে আসতে শুরু করেন। কিন্তু মৌসুমের মাঝপথে তো আর কোন দল থেকে ভালো প্লেয়ার আনা যায় না। তাই বিকল্প চিন্তা করছিলেন। আর তখনই তার চোখ পরে দানি আলভেসের উপর। দানি আলভেস ছিল জাভির সঙ্গের খেলোয়াড়। কিন্তু একটা সময় আলভেস বার্সা ছেড়ে জুভেন্টাস এবং পিএসজি হয়ে ব্রাজিলের ক্লাব সাও পাওলোতে খেলছিলেন। বেতন নিয়ে ঝামেলার কারণে চুক্তি বাতিল করে আলভেস তখন বেকার ছিলেন। এই সুযোগে বার্সা তাকে ডাকে এবং ডাকে…

Read More

গোলে শুরু ভিনিসিয়াসের, গোলেই মৌসুম শেষ

স্প্যানিশ লা লিগায় চলতি মৌসুমে রিয়াল মাদ্রিদের প্রথম ম্যাচ ছিল আলাভেসের বিপক্ষে। ম্যাচে রিয়াল মাদ্রিদের শুরুর একাদশে আক্রমন ভাগে ছিলেন হ্যাজার্ড, বেল এবং বেনজামা। এই ম্যাচে রিয়াল মাদ্রিদ জয় লাভ করে ৪-১ গোলে এবং ম্যাচে হ্যাজার্ডের বদলি হয়ে মাঠে নেমে ৯২ মিনিটের সময় একটি গোল করেছিলেন ভিনিসিয়াস জুনিয়র। পরের ম্যাচে লেভান্তের বিপক্ষে রিয়াল মাদ্রিদের আক্রমন ভাগ প্রথম ম্যাচের মতই সাজিয়েছিলেন কোচ আনচেলোত্তি। কিন্তু এই ম্যাচে রিয়াল মাদ্রিদ ড্র করে ৩-৩ গোলে। ম্যাচে ভিনিসিয়াস জুনিয়র যখন বদলি হয়ে মাঠে নামেন তখন রিয়াল মাদ্রিদ পিছিয়ে ২-১ গোলে। সেই ম্যাচে ভিনিসিয়াস পরবর্তিতে জোড়া…

Read More